অন্যায় প্রতিরোধ করতে হবে : কাউন্সিলর রুহুল

প্রকাশিত: ৭:১৯ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ১৭, ২০২০

নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের (নাসিক) ৮নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর রুহুল আমিন মোল্লা বলেন, জীবন-জীবিকার তাগিদে নারীদেরকে বাসা থেকে বের হয়ে কর্মস্থলে যেতে হয়। তাই তাদের একটু সচেতন হতে হবে। আশেপাশে পরিবেশ, লোক সর্ম্পকে জানতে হবে। কোন লোকটি দ্বারা ক্ষতি হতে পারে, তাদের থেকে দূরে থাকতে হবে। আর যারা সমাজে খারাপ লোক তাদেরকে যদি চিহ্নিত করে সমাজে তুলে ধরতে পারি সেক্ষেত্রে অনেকে সচেতন হতে পারবে। আর এই ধরণের কাজগুলো কারা করে থাকে!

যারা মাদকের সাথে জড়িত, বিভিন্ন খারাপ কাজের সাথে জড়িত, তারা এই কাজ করে থাকে। অনেকে সময় দেখা গেছে যারা প্রভাবশালী বিত্তবান লোক তারা এই ধরণের কাজে জড়িয়ে পরলো, তখন তাদের বিচার করতে গেলে হিমশিমে পড়তে হয়। আমাদের যেনো বিচার করতে গিয়ে এই ধরনের পরিস্থিতিতে পড়তে যাতে না হয়। বিচার ব্যবস্থায় যেনো সমান অধিকার পায় সে দিকে খেয়াল রাখতে হবে ধনী-গরিব ব্যবধান বিচার যেনো না হয়। আমাদের সকলে প্রচেষ্টায় আমদের দেশ থেকে মাদকমুক্ত দেশ গড়ে তুলবো। এর জন্য অন্যায় প্রতিরোধ করতে হবে।

শনিবার (১৭ অক্টোবর) সকালে সিদ্ধিরগঞ্জ ৮নং ওয়ার্ডে নিউ আইলপাড়া এলাকায় ধর্ষণসহ সকল নারী নির্যাতন প্রতিরোধে নারী ধর্ষণ ও নির্যাতন বিরোধী বিট পুলিশিং মত বিনিময় সভা ও র‌্যালী আয়োজনে তিনি এসব কথা বলেন।

অনুষ্ঠানে সিদ্ধিরগঞ্জ থানার ৮নং ওয়ার্ড বিট ইনচার্জ ফয়জুর ইসলাম বলেছেন, আমাদের সমাজে ধর্ষণের পরিমাণ বেড়ে গেছে। ক্যান্সার রোগের মত অবস্থা হয়ে গেছে। আমাদের পরিবারে কেউ না কেউ এসব ঘটনার সাথে জড়িত হচ্ছে। যারা এই কাজের সাথে জড়িত তাদের আইনের আওতায় আতে হবে। আমাদের নবী হযরত মুহাম্মদ (সা.) নারীদের যে সম্মান দিয়েছে সেই অধিকার উপর আর কোন অধিকার নাই। আমাদের দেশে যেমন ইসলামি আইনি শাসন নাই। আমাদের নারী পুরুষ এক সাথে মিলে কাজ করতে তাই তাদের মাঝে ইসলামি শিক্ষা দিতে পারি তাহলে তাদের এ কাজ থেকে বিরত রাখতে পারবো। সন্তান যখন আমাদের তাদেরকে আমাদের মানুষের মত গড়ে তুলতে হবে। পরিবার থেকে সন্তান গড়ে তুলতে হয়। সন্তান দের প্রতি খেয়াল করতে হবে সে কার সাথে কথা বলে।

তিনি আরো বলেন, আপনার সন্তান কার সাথে চলে, মোবাইলে কার সাথে কথা বলে, যাতে করে কোন ভাবে ভুল পথে পা না বাড়ায়। আপনাদেরকে একটি কমিটি করতে হবে যেখানে আপনারা এলাকার যারা প্রতিনিধিত্ব করেন এই কমিটির মধ্যে থাকবেন তার সাথে সাথে থাকবে সমাজে যুবকরা, মসজিদে ইমামগণ। তাদের মাধ্যমে যারা সমাজে যারা ভুল পথে চলে গেছে তারা তাদের সাথে আলোচনা করে সঠিক পথে আনতে হবে।

বায়তুল ফালাহ জামে মসজিদ সভাপতি আবু মুছা বলেন, আমারা মোবাইল সর্ম্পকে সবাই জানি মোবাইলে মাধ্যমে কি কি দেখা যায়। যার ফলে আমাদের যুবক সমাজ নষ্ট হয়ে যাচ্ছে। নারী ধর্ষক যারা এরা বিদেশীদের সংস্কৃতিকে অনুসরণ করছি। যার ফলে এমন ধর্ষণের পরিমাণ হচ্ছে। এই কারণে পরিবারের অভিবকদেরকে সচেতন হতে হবে। এবং নারী পুরুষ সকলকে ধর্মীয় চিন্তা করে চলার অনুরোধ করেন এবং সমাজে কোন ধরণের অসামাজিক কাজে জড়িতদেরকে কোন ধরণের ছাড় দেয়া হবে না বলে হুশিয়ারি দেন।

অনুষ্ঠানে বক্তারা ইসলামি আদর্শের জীবন সর্ম্পকে গুরুত্ব তুলে ধরেন। এবং সমাজে মাদক ও ভারতীয় টিভি চ্যানেলে অসামাজিক অনুষ্ঠানগুলোএবং মোবাইলে মাধ্যমে বিভিন্ন পর্ণসাইটগুলো দেখে সমাজে এই ধরণে অবস্থা হচ্ছে বলে মন্তব্য করেন

এসময় উপস্থিত ছিলেন, নিউ আইলপাড়া সমাজ কল্যাণ সভাপতি মাহাতাব হোসেন, বায়তুল ফালাহ জামে মসিজদের অর্থ সম্পাদক গোলাম মোস্তফা হাওলাদার, নিউ আইলপাড়া সমাজ কল্যাণ সাধারণ সম্পাদক মোস্তফা হাওলাদার, বায়তুল ফালাহ জামে মসিজদের ইমাম মাওলানা সফিউদ্দিন আহম্মেদ, আইলপাড়া এলাকার ইসমাইল মাদবর, মাসুদ সিদ্ধিরগঞ্জ থানার এসআই স্বপন, আইলপাড়া ও নিউ আইলপাড়া যুব সমাজের শাহাজান, শহিদুল্লাহ, হিমেল আল আমিন, সুমন, ইউসুফ প্রমুখ।